Home / সবিশেষ / আজফার হোসেন- এর কবিতা । ইতিহাসে পাতিহাস

আজফার হোসেন- এর কবিতা । ইতিহাসে পাতিহাস

Azfar-Hussain

 

এক
অতঃপর ভরা মুহূর্তের উপচে-পড়া নৈঃশব্দ্য থেকে
জেগে ওঠে অবেলার স্বরগ্রাম—এক দুই তিন।
উপমা লটকে গেলো সেরিনার চুলে,
প্রেম তখন সূর্যের মুখোমুখি, গায়ে তার ঘাম।
হেঁটে যায় ইতিহাস শিস দিয়ে, ফুরফুরে মেজাজ।
চোখের ভেতরে মুসা নবীর পাহাড় কাঁপে থিরথির
চুমুর মতো; নখের আগায় যেন নিমিষের বিদ্যুৎ!

 

দুই

ইতিহাসের পিঠে চড়ে বসেছে
এ-তল্লাটের নতুন মাস্তান, তেরচা করে
সে পানের পিক ফেলে অজস্র হরফের ওপরঃ
স্থান ঢেপসে যায় রতিক্লান্ত কণিকার টিপের মতো,
ঊরুতে চিমটি কাটে সময়, জাপানী হাইকুর
মতো ইঙ্গিতময় পরিসরে পড়ে থাকেন
তিনটি আঙুল—এক দুই তিন।

তিন

ইতিহাস পেচ্ছাবের ধারায় গরম জল হয়ে
বেরিয়ে যাচ্ছে কানাগলির দিকে।
আমাদের কানাগলি ছিলো। সঙ্গে ছিলো পথ।
এক তরুণ কবি চারুবাবু নিয়ে কবিতা লিখেছিলো
যার একটি স্তবক রহস্যের মতো চোখের সামনে
ঝুলে ছিলো একরত্তি মহাকাল জুড়ে, তারপরই চারুবাবু
গেলেন হেঁটে হেঁটে, সেই দগদগে ঘা শুকাতে শুকাতে
মেঘনার অভিমান হলোঃ জলের আভাসে নদীর চিহ্ন,
তার জ্বালা জিজ্ঞাসারঃ ইতিহাস কেনো পাতিহাস হলো?