Home / সবিশেষ / অনিবার্য রফিক আজাদ – মোশতাক আহমদ

অনিবার্য রফিক আজাদ – মোশতাক আহমদ

7মোশতাক আহমদ

আমার প্রথম যৌবনে রফিক আজাদ ছিলেন অনিবার্য।

এক সময়ে আমাদের কবিকূল কবিতা পত্রিকায়, তারপরে সমকালে কিংবা দৈনিক বাংলায় কবিতা ছাপা হলে যেমন নিজেদের কবিতা নিয়ে, কবিত্ব নিয়ে নিঃসংশয় হতেন, ৮৭ তে বিচিত্রায় কবিতা প্রকাশিত হলেও ৮৮র মার্চ মাস নাগাদ রোববারে কবিতা ছাপা হবার আগে ( চড়ুইকে নিবেদিত পঙক্তিমালা ও সড়ক নম্বর দুঃখ, বাড়ি নম্বর কষ্ট- ২য় ও ৪র্থ সপ্তাহে দুটি কবিতা ছাপা হয়) আমি আমার কবিতা নিয়ে সাহস পাইনি। আমার জীবনে তাঁর প্রভাব ছিল অনিবার্য। খুব আকর্ষণ করেছিল তাঁর গদ্যাক্রান্ত, বেপরোয়া , পুরুষালি, নাগরিক কাব্যভাষা।
নশ্বরতা মানুষের নিয়তি, কিন্তু প্রকৃত কবিতা অবিনশ্বর ।

১৯৮৯ সালে কবিকে আমার একটা কবিতা উতসর্গ করেছিলাম। গঙ্গা জলে গঙ্গা পুজার মতো, তাঁর স্টাইলেই কবিতাটা লিখবার ব্যর্থ চেষ্টা ছিল।

অনিবার্য নিম / অগ্রজ কবি রফিক আজাদকে

সেই স্মৃতি মনে থাকে না কারো,
তবু মানুষ মগজের কোষে আনতে চায়
মাতৃস্তনে তার জীবন যাপন
জরায়ুতে তার জীবনের ভ্রূণ।
সে নিষ্পাপ স্মৃতি
সীমিত মেধার প্রাণপণ বিস্তারে আসে না কোনো দিন।

মাতৃস্নেহের সরল নির্ভরতার দিনরাত
শেষ হয়ে যায় একদিন,
ওই আর্কেডিয়া ছেড়ে
একটি জীবন অতিক্রম করে যায়
বাণিজ্যিক সৌন্দর্যের বিভিন্ন অন্ধকার,
বিশাল তিতকুটে নিমের অরণ্য,
হিংসা ও বিদ্বেষের গ্রাম,
যুদ্ধবাজ সম্মিলিত পঞ্চায়েতপুঞ্জ।

সাফল্য কীর্তি আর আনন্দের পাশাপাশি
এ রকম স্মৃতিও রচিত হয়, বহ্ন্যুতসবে
সুখী হতে পারতো মানুষ;
ঈষান নৈঋতে বায়ু অগ্নিতে
সহস্র নিবেশের পর
সহিষ্ণু দুই কাঁধে
জোয়ালের মতো
বয়ে যেতে হয় সেই অনিবার্য নিম।

( কবিতা রচনাকাল ৬ মার্চ ৮৯, গ্রন্থিত হয়েছে আমার প্রথম কাব্য সড়ক নম্বর দুঃখ, বাড়ি নম্বর কষ্ট, ১৯৮৯ -এ)