Home / বইয়ের দুনিয়া / শেষ পর্যন্ত লোগো বদলালো যুক্তরাষ্ট্রের ‘ISIS’ বইয়ের দোকান

শেষ পর্যন্ত লোগো বদলালো যুক্তরাষ্ট্রের ‘ISIS’ বইয়ের দোকান

isisশেষ পর্যন্ত লোগো বদলালো যুক্তরাষ্ট্রের ‘ISIS’ বইয়ের দোকান
যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডোর এঙ্গেলউড শহরের সবচেয়ে বিখ্যাত বই বিক্রির প্রতিষ্ঠানটি এবারে তাদের গ্রাহকদের ক্রমাগত চাপে ও হামলার কারণে লোগো পরিবর্তনে বাধ্য হয়েছে। মিশরীয় দেবী আইসিসের (ISIS) নামে ৩৫ বছর পূর্বে ক্যারেন হ্যারিসন প্রতিষ্ঠানটি শুরু করেন। বই ছাড়াও প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন গিফট আইটেমও বিক্রি করতো। প্রতিষ্ঠানটির নাম নিয়ে এতোদিন কোন সমস্যায় পড়তে না হলেও, মধ্যপ্রাচ্যে আইএস জঙ্গীদের প্রভাব বিস্তারের সাথে সাথে বিতর্ক দানা বাঁধতে থাকে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটির নামকে ঘিরে।
সেই বিতর্ক চরম আকার ধারণ করে গতবছরের নভেম্বরে এসে। প্যারিসে আইএস জঙ্গীদের হামলার পর থেকেই সাধারণ মানুষের চক্ষুশূলে পরিণত হয় আইএস নামটিই। যার প্রভাব পড়ে কলোরাডোর এই প্রতিষ্ঠানটির উপরেও। পথচারি মানুষজন রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় প্রতিষ্ঠানের নাম দেখেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। কেউ কেউ পাথর ছুড়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। অবস্থা একসময় এমন দাড়ায় যে পথচারীদের ছোড়া পাথরে পুরো দোকানটিই ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়। ক্রেতার সংখ্যাও কমতে কমতে একেবারে শূণ্যের কোঠায় নেমে আসে। শেষে উপায়ন্তর না দেখে প্রতিষ্ঠানটির লোগো পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেন এর মালিক ক্যারেন হ্যারিসন। এবছরের শুরুতে অবশেষে আইসিস নামটির বদলে সেখানে দেবী আইসিসের ছবি আর নিচে লেখা “দশ হাজার নামের দেবী“।
ফক্সনিউজ থার্টিওয়ানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে হ্যারিসন জানান, লোগো পরিবর্তনের পর থেকে গ্রাহক, পথচারীদের মধ্য থেকে ইতিবাচক প্রভাব লক্ষ্য করা গেছে। আমরা আশা করছি আগামীতে এই পরিবর্তন আমাদের জন্য বেশ সুফল বয়ে আনবে। নাম পরিবর্তনের বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, আমরা শুধুমাত্র প্রতিষ্ঠানের লোগো পরিবর্তন করেছি, নাম এখনো অপরিবর্তিতই আছে। মানুষের মাঝে এই নাম নিয়ে যাতে কোনো প্রকার বিভ্রান্তি না ছড়ায় সেজন্যই আমাদের এই উদ্যোগ। এর বাইরে নাম নিয়ে আমাদের তেমন কোনো মাথাব্যাথা নেই।